• সারাদেশ

    কুড়িয়ে পাওয়া ৫ লাখ টাকার মালিক খুঁজতে মাইকিং

      নিউজ ডেস্ক ২০ আগস্ট ২০২২ , ৬:৫০:০৯ প্রিন্ট সংস্করণ

    কুড়িয়ে পাওয়া ৫ লাখ টাকার মালিক খুঁজতে মাইকিং

    ঠাকুরগাঁও-পঞ্চগড় মহাসড়কে প্রায় পাঁচ লাখ টাকাসহ একটি ব্যাগ কুড়িয়ে পেয়েছেন সৌরভ নামে এক যুবক। সেই টাকার মালিকের খোঁজে মাইকিং করে প্রশংসায় ভাসছেন তিনি।

    শনিবার (২০ আগস্ট) সকাল ১০টা থেকে ঠাকুরগাঁও শহরজুড়ে এই মাইকিংয়ের ব্যবস্থা করা হয়। সৌরভ ঠাকুরগাঁওয়ের শান্তিনগর এলাকার আনোয়ার হোসেনের ছেলে। তিনি পেশায় একজন ক্রোকারিজ ব্যবসায়ী।

    জানা গেছে, বৃহস্পতিবার বিকেলের পরে ঠাকুরগাঁও-পঞ্চগড় মহাসড়কের ধারে একটি ব্যাগ পড়ে থাকতে দেখেন সৌরভ। কোনো পথচারীর প্রয়োজনীয় ব্যাগ হতে পারে ভেবে সেটি সঙ্গে নেন তিনি। পরে ব্যাগ খুললে সেখানে প্রায় পাঁচ লাখ টাকা দেখতে পান। তাই টাকার সন্ধানে কেউ খুঁজতে আসবেন বা মাইকিং করতে পারেন ভেবে অপেক্ষায় ছিলেন সৌরভ। কিন্তু ব্যাগ পাওয়ার ২৪ ঘণ্টা পার হলেও পাওয়া যায়নি সেই টাকার মালিক। তাই মালিকের সন্ধানে মাইকিং করার ব্যবস্থা করেন তিনি। আর এই মাইকিং বের শুরুর পর থেকেই জেলাজুড়ে প্রশংসায় ভাসছেন সৌরভ।

    মাইকিং শুনে শহরের ব্যবসায়ী আদম আলী বলেন, এই মাইকিং প্রমাণ করে যে, মানবতা এখনো বেঁচে আছে। পৃথিবীতে এখনো ভালো মানুষ আছে। সৌরভের সর্বময় মঙ্গল কামনা করি। তাকে দেখে সমাজের অন্য লোকজন অনেক কিছু শিখতে পারবে।

    শহরের বাসিন্দা আবু সালেহ বলেন, সকালে বাসা থেকে বের হয়েই আমি টাকার মালিকের খোঁজে বের করা মাইকিং শুনতে পাই। প্রথমে অবাক হয়েছি। তবে ঘটনাটি অবশ্যই প্রশংসা করার মতো।

    মাইকিংয়ের বিষয়টি তুলে ধরে ফেসবুকে একটি স্ট্যাটাস দেন হিমেল নামে এক যুবক। সেখানে সোহেল ঢালি নামে একটি আইডি থেকে কমেন্ট করা হয়েছে, ঈমানদার ব্যক্তি সমাজে আছে বলেই সমাজ তথা পৃথিবী টিকে আছে। সেই পোস্টে মানবতার জয় হোক বলে কমেন্টও করেছেন অনেকে।

    কুড়িয়ে পাওয়া টাকার মালিক খুঁজতে মাইকিংসড়কের পাশে টাকা কুড়িয়ে পাওয়া সৌরভ

    এ বিষয়ে সৌরভ বলেন, ঠাকুরগাঁও-পঞ্চগড় মহাসড়কে ব্যাগটি পড়ে থাকতে দেখি। পরে ব্যাগভর্তি টাকা দেখতে পাই। এই টাকা হতে পারে কারও ব্যবসার মূল পুঁজি। হতে পারে চাকরিজীবী কারও অফিসের টাকা। অথবা এই টাকাই হতে পারে কারও স্বপ্ন পূরণের পুঁজি। তাই ভেবেছি টাকাটি মালিকের কাছে পৌঁছে দেওয়া জরুরি। তাই মাইকিং করে মালিককে খোঁজা হচ্ছে।

    তিনি আরও বলেন, টাকার মালিক স্টেডিয়ামের সামনে মদিনা মেশিনারিজ দোকানে এসে আমার সঙ্গে যোগাযোগ করতে পারেন।

    এই ঘটনায় ঠাকুরগাঁও সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) কামাল হোসেন বলেন, টাকা হারিয়েছে জানিয়ে কেউ এখনো আমাদের কাছে কোনো জিডি করেনি। তাই টাকার মালিকের বিষয়ে এখনই আমরা কোনো সহায়তা করতে পারছি না। তবে টাকার মালিক খোঁজার এই অভিনব ঘটনাটি প্রশংসনীয়।

    এ বিষয়ে ঠাকুরগাঁও সদর উপজেলার সহকারী কমিশনার-ভূমি (এসিল্যান্ড) শাহারিয়ার বলেন, অবশ্যই এটি একটি প্রশংসনীয় উদ্যোগ। যুবক সৌরভকে সাধুবাদ জানাই। তার কোনো রকমের প্রশাসনিক সহায়তা প্রয়োজন হলে আমরা পাশে থাকবো।